বাঙালির মুক্তিযুদ্ধে অন্তরালের শেখ মুজিব | কালিদাস বৈদ্য

ডাঃ কালিদাস বৈদ্য পাকিস্তানের কবল থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করার সংগ্রামে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। শেখ মুজিবর রহমানের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ জন হিসাবে দুরূহ দায়িত্ব বহন করেছেন, ইতিহাসের পালা বদলকে তিনি ভিতর থেকে দেখেছেন। বাংলাদেশের মুক্তিসংগ্রাম নিয়ে ঢাকায় সেসব গ্রন্থ রচিত হয়েছে তাতে কালিদাস বৈদ্যের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার উল্লেখ পাওয়া যায়। এই বইয়ে তিনি তাঁর নিজের কথা যতটা লিখেছেন তার চেয়ে বেশি পাকিস্তানকে ভেঙে দেওয়ার পরিকল্পনা কীভাবে করা হয়েছিল, দীর্ঘমেয়াদী উদ্যোগ কীভাবে নেওয়া হয়েছিল, শেখ মুজিবর রহমান ঠিক কী চেয়েছিলেন, কোন পথে কীভাবে এগিয়েছিলেন সে সবের অন্তরঙ্গ বিবরণ দিয়েছেন। ওইসব ঘটনার প্রতিটি পর্বের সঙ্গে কালিদাসবাবু জড়িত ছিলেন।
দেশ ভাগের সময় কালিদাস ছিলেন ছাত্র, অন্যদের সঙ্গে কোলকাতায় চলেও এসেছিলেন। কিন্তু ১৯৫০ সালেই তিনি ফিরে গিয়েছিলেন ঢাকায়, পাকিস্তানকে ভেঙে দেওয়ার ব্রত নিয়ে। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে তিনি এম.বি.বি.এস পাশ করেন, ঢাকাতেই ডাক্তারি প্রাকটিস শুরু করে ভালো পসার জমিয়ে ফেলেন। কিন্তু তিনি মেডিক্যাল কলেজে ছাত্র থাকার সময় ছাত্র রাজনীতি সংগঠিত করতে শুরু করেছিলেন, ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা নিয়েছিলেন। মুজিবর রহমানের সঙ্গে তাঁর পরিচয় গড়ে ওঠে তখন থেকেই।
কালিদাসবাবু এই বইয়ে সেইসব কথা লিখেছেন যা বাইরে থেকে কারও পক্ষে জানা সম্ভব নয়। ইতিহাসের গতির সেই বিবরণ তিনি তুলে ধরেছেন যা আগে প্রকাশিত হয়নি। কিন্তু এই বইয়ে শুধু ইতিহাসের কথাই নেই। আছে মুক্তিযুদ্ধের আগের ও পরের এমন সব কথা যা আমাদের যত্নলালিত ধারণাগুলিকে তীব্রভাবে নাড়া দেবে। যেমন, মুজিবর রহমানের প্রকৃত মনোভাব, উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য বাংলাদেশে ইসলামিক সাম্প্রদায়িকতার নিবিড় পরিচয় এই বই থেকে পাওয়া যাবে।

মুজিব এবং ভুট্টো
মুজিব ভুট্টোর চুম্বন


মুজিব
মুজিব

3 thoughts on “বাঙালির মুক্তিযুদ্ধে অন্তরালের শেখ মুজিব | কালিদাস বৈদ্য

  • June 30, 2020 at 8:36 PM
    Permalink

    মানবতা আর ইসলাম কোনকালেই সহাবস্থান করেনি, ভবিষ্যতে করবে এটা আশাতীত।

    Reply
  • July 21, 2020 at 5:50 PM
    Permalink

    নতুন আলোয় তথাকথিত “বঙ্গবন্ধু” কে দেখলাম। আসিফদাকে অনুরোধ, বইটির পিডিএফ করে
    ই গ্রন্থাগারে রাখলে আমাদের সকলের কাছে সুপ্রাপ্য হয়। অনেক ধন্যবাদ।

    Reply
  • July 25, 2020 at 4:05 AM
    Permalink

    পুরো বইটা pdf আকারে দিলে ভাল হয়

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *